মানবতার হবে জয়, মানবতা লঙ্ঘন করে নয় -জাহাঙ্গীর হোসেন - JONOPRIO24

Breaking

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

মঙ্গলবার, ১ ডিসেম্বর, ২০১৫

মানবতার হবে জয়, মানবতা লঙ্ঘন করে নয় -জাহাঙ্গীর হোসেন

মোঃ কামরুজ্জামান, ফ্রান্স প্রতিনিধি : বাংলাদেশের মানবাধিকার সংগঠন বাংলাদেশ লিবারেল হিউম্যান রাইটস এন্ড সোস্যাল এফেয়ার্স ফাউন্ডেশন, ফ্রান্স ইউনিট, এর সভাপতি জনাব জাহাঙ্গীর হোসেন বিশ্বে মানবতার রক্ষার জন্য সকলকে এক সাথে কাজ করার আহবান জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন । পাঠকদের উদ্দেশ্যে তা তুলে ধরা হল-       
জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন আমাদের সকলের শ্লোগান হবে, মানবতার হবে জয় , মানবতা লঙ্ঘন করে নয়  । এই লক্ষ্যেই আমাদের সমাজের সর্বস্তরের সকলকে এক সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন আজ বিশ্বব্যাপী সর্বত্রই মানবতার লঙ্ঘন হচ্ছে, প্রতিনিয়তই ঘটছে পৃথিবীর কোথাও না কোথাও মানবতা বিরোধী কর্মকান্ড । শুধু যুদ্ধই মানবতাকে আক্রান্ত করেনি, আমাদের সমাজের সমাজপতিরা সহ সর্বস্তরের মানুষের দ্বারাও কোন না কোন ভাবে মানবতা লঙ্ঘিত হচ্ছে। আর এই মানবতা লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে সারা বিশ্বে অবিরাম কাজ করে যাচ্ছেন, মানবতাবোধের ধারকেরা থেকে শুরু করে ছোট থেকে বড় কিংবা ক্ষমতাশালী থেকে নিঃস্ব  সকলেই । যে যার অবস্থান থেকে যতটুকু সম্ভব মানবতার পক্ষে কাজ করে যাচ্ছেন । আমরা এখনও আশাবাদী বিশ্বব্যাপী মানবতা বিরোধী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে  যারা কাজ করেন, তাদের সাথে একত্রিত হয়ে বা সকলে এক সাথে কাজ করলে, হয়তো এভাবেই কোন কোন ক্ষেত্রে মানবতা লঙ্ঘন  কমে আসবে। এক্ষেত্রে তাদের হস্তক্ষেপ কিংবা মানবতার পক্ষে শুভ কামনার দিকে আজ তাকিয়ে আছে বিশ্বমানবতা। উদাহরন স্বরূপ, এক সময় আমাদের দেশে পঞ্চায়েত  ব্যবস্থা ছিল । সমাজে কোন বিশৃঙ্খলা কিংবা মানবতা বিরোধী কোন কর্মকান্ড সংগঠিত হইলে, পঞ্চায়েতরাই তার সমাধান দিতেন এবং  পূনরায় যেন এ ধরনের কোন মানবতা বিরোধী কর্মকান্ড না ঘটে তার ব্যবস্থা করতেন । কিন্তু যখন পঞ্চায়েতের উপরই মানবতা বিরোধী কর্মকান্ড সংগঠিত হয়, তখন মানবতা নিভৃতে কাঁদে । তাকে রক্ষার আর শক্তিশালী বাহক থাকেনা । যদি ও এ বাহকরাও কখনো কখনো মানবতা বিরোধী কর্মকান্ডে লিপ্ত হয়, তথাপিও মানবতাবোধ রক্ষার ভূমিকা তাদের কাছেই নিরাপদ এবং শক্তিশালী । তারাই ইচ্ছা করলে মানবতার লঙ্ঘন কমিয়ে আনতে পারে ।  আমরা যদি সারাবিশ্বকে একটি সমাজ ধরি, আর এ সমাজের একজন পঞ্চায়েত হচ্ছে ফ্রান্স । আর এ পঞ্চায়েতের ঘরেই যদি এভাবে উলঙ্গভাবে হামলা হয়, তাহলে কালকের পৃথিবীর কি হবে ? আমরা যে আশা বুকে বেঁধে আছি, বিশ্বের এই অস্থিতিশীল অবস্থার সমাধান এই পঞ্চায়েতরাই করবে, তারই বা কি হবে ?

অতএব , আমরা এখনও আশা ছাড়িনি বিশ্বব্যাপী মধ্যপ্রাচ্য , এশিয়া , ল্যাটিন আমেরিকা এবং আফ্রিকায় যে প্রতি মুহূর্তে মানবতা লঙ্ঘিত হচ্ছে, তার একটা সমাধান ইচ্ছা করলে তথাকথিত বিশ্ব পঞ্চায়েতরাই দিতে পারে । তারাই হয়তো একদিন তার সমাধান খুঁজে বের করার চেষ্টা করবে । হয়তো আল্লাহর সহায়তায় পৃথিবীতে শান্তি ফিরে আসবে ।  আমরা দেখছি প্রতিনিয়তই সর্বত্র মানবতার লঙ্ঘিত হচ্ছে, তাই বলে তার প্রতিবাদ হিসেবে আমরা আরেকটা মানবতা বিরোধী কর্মকান্ডে জড়িত হইতে পারিনা । তাতে মানবতা রক্ষা না হয়ে মানবতার বিপর্যয়ই আসবে, আর কিছু নয় । তাই মানবতার কথা যারা ভাবেন, যারা মানবতার কর্মী , তাহাদের কাছে আমাদের কামনা মানবতার লঙ্ঘন সম্পর্কে এমন কিছু লেখেন, যাহাতে মানবতা বিরোধী কর্মকান্ডে জড়িতরা মানসিকভাবে বিধ্বস্ত হয়ে মানবতা বিরোধী কর্মকান্ড থেকে সরে আসে । অপরদিকে পত্র পত্রিকা কিংবা কোন সামাজিক মাধ্যমে এ ধরনের কোন লেখা কিংবা মন্তব্য করা আমাদের উচিত নয়, যাহার কারনে মানবতার কর্মীরা উৎশৃঙ্খল কিংবা উগ্র হয়ে আরেকটা মানবতা বিরোধী কর্মকান্ডে জড়িত হইতে উৎসাহিত করে । আমি বিশ্বাস করি , মানবতার হবে জয় , মানবতা লঙ্ঘন করে নয় ।

জাহাঙ্গীর হোসেন,
সভাপতি,
ফ্রান্স ইউনিট,
বাংলাদেশ লিবারেল হিউম্যান রাইটস এন্ড সোস্যাল এফেয়ার্স ফাউন্ডেশন ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Top Ad

Responsive Ads Here