হাসিনা আমার মায়ের মত, জামায়াতের সঙ্গে বেহেস্তে যেতেও রাজি নইঃ কাদের সিদ্দিকী! - JONOPRIO24

Breaking

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

মঙ্গলবার, ৩ নভেম্বর, ২০১৫

হাসিনা আমার মায়ের মত, জামায়াতের সঙ্গে বেহেস্তে যেতেও রাজি নইঃ কাদের সিদ্দিকী!

জনপ্রিয় ডেস্ক : বিএনপির সঙ্গে আমার মিলন হবে না। কারণ তারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মৃত্যুর দিনেও জন্মদিন পালন করতে উৎসাহবোধ করেন। আর এ দেশের যুবকরা যৌবনকালে নারীর সঙ্গে প্রেম করে, আমি কিন্তু কোনো নারীর সঙ্গে প্রেম করিনি। আমার ভালোবাসা মূলত বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে। আর সেই ভালোবাসা থেকে আমি দেশকে ভালোবাসতে শিখেছি। এ জন্যই আমি আজকে টকশোতে এসে এতো কথা বলতে পারি। সোমবার রাতে খালেদ মহিউদ্দিনের উপস্থাপনায় ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনে আজকের বাংলাদেশ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর আবদুল কাদের সিদ্দিকী (বীর উত্তম)। অনুষ্ঠানে আলোচনার বিষয় ছিল আদর্শ আজকাল। অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের সাম্যবাদী দল (এমএল) সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়য়া ও বিএনপি নেতা ও সাবেক এমপি মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান। বঙ্গবীর আবদুল কাদের সিদ্দিকী বলেন, আমার সঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার অনেক কথা হয়েছে। তিনি (খালেদা জিয়া) আমাকে সম্মান করেন, আমিও তাকে সম্মান করি। অনেকে মনে করতে পারেন- মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অসম্মান করি। আসলে আমি তাকে (শেখ হাসিনা) মায়ের মত সম্মান করি। আমার কাছে এ পৃথিবীতে মায়ের উপরে কেউ নেই। একজন মানুষ হিসেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী একেবারে মায়ের মত। কিন্তু তার কার্যকলাপ, সরকার হিসেবে দেশ পরিচালনা, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি এসব অনুপযুক্ত মানুষের কর্মকা-ের ফসল। আর প্রশাসনে খুব বেশি যোগ্য মানুষ যোগ্য স্থানে নেই। খালেদা জিয়ার জন্মদিন প্রসঙ্গে কাদের সিদ্দিকী বলেন, তিনি (খালেদা জিয়া) আমার কাছে কয়েক বার বলেছেন- তিনিও বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর দিনে জন্ম দিন পালন করতে চান না। কিন্তু দলের নেতাকর্মীরা জন্মদিন পালন করতে চায়। তিনি (খালেদা জিয়া) না চাইলেও তার দলের নেতাকর্মীরা তার জন্মদিন পালন করতে চায়। অর্থাৎ এ থেকে বোঝা যায় বিএনপির উপর তার কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। অনেকে মনে করছে বিএনপি ও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের আন্দোলনের দাবি একই। এমনকি বিএনপি চেয়ারপাসরন বেগম খালেদা জিয়া লন্ডবে বসে ঐক্যের আহ্বান জানিয়েছেন। আপনি (কাদের সিদ্দিকী) কী এই ঐক্যে জোট বাধবেন উপস্থাপক খালেদ মহিউদ্দিনের এ কথার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিএনপির সঙ্গে আমার জোট করার কোনো সম্ভাবনা নেই। তবে অনেকে মনে করতে পারবে বিএনপি ও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের আন্দোলনের দাবি একই। কিন্তু আমার দাবির সঙ্গে বিএনপির দাবি পার্থক্য অনেক। আর বিএনপির সঙ্গে আমার দূরত্ব প্রচুর। জামায়াতের কথা উল্লেখ করে বঙ্গবীর বলেন, আমি জামায়াতের সঙ্গে বেহস্তে যেতেও রাজি নই। আপনি জামায়াত সমর্থিত একটি টেলিভিশনে নিয়মিত টকশো করতেন যা অনেক জনপ্রিয় ছিল উপস্থাপক এ প্রশ্ন তুললে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেন, ঐ টকশোতে অনেক মন্ত্রী ও নেতাকর্মী গিয়েছিলেন। আমি জানি- মানুষ আমাকে ভালোবাসে। আমাকে নিয়ে মানুষ অনেক সমালোচনা করেন। সেই সমালোচনাকদের ধন্যবাদ জানাই। আমি সব ক্ষেত্রে ভাল হতে চাই না। আমি কিছুক্ষেত্রে খারাপ থাকতে চাই। অর্থাৎ আমি নিজে খারাপ না হলেই হলো। সেখানে মানুষের ধারণাটা কী হল- সেটা মানুষেই বিচার করবে। অর্থাৎ আমি আমাকে পবিত্র রাখার চেষ্টা করব। আমার ভুলের জন্য ক্ষমা চাইবো। আমি যখনি বুঝতে পারি এটা ভুল করেছি তখন নিঃসঙ্কচে সেটা নিয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করি। তিনি বলেন, আমি জামায়াত সমর্থিত ঐ টেলিভিশনে টকশো করতে গিয়েছি। যত দিন চলেছে তত দিন গিয়েছি। হাজার হাজার মানুষ এই অনুষ্ঠান দেখেছেন। আমি খোঁজ খবর নিয়ে জেনেছি- ঐ টেলিভিশনে বহু আওয়ামী লীগের লোকজন শেয়ার হোল্ডার ছিলেন। অর্থাৎ শেয়ার কিনতে আওয়ামী লীগের এসব লোকজনের কোনো দোষ হয়নি কিন্তু আমি অনুষ্ঠান করায় দোষ হয়েছে। বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী আরো বলেন, ঐ টেলিভিশনে যাওয়াতে যারা আমাকে দোষী ভেবেছেন, তারা যদি কখনো বলতেন- আপনি স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছেন, আমরা আপনাকে নিয়ে গর্ব করি। আপনি জামায়াত সমর্থিত ঐ চ্যালেনে গেলে কষ্ট পাই। তখন হয়তো আমি তাদের কথাগুলো বিবেচনা করতাম। এটা একমাত্র নিন্দুকের নিন্দা আবিষ্কার করার পথ মাত্র।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Top Ad

Responsive Ads Here