কানাইঘাটে হাততালি দেয়াকে কেন্দ্র বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ছাত্র ও শিক্ষক সহ আহত ২৫ - JONOPRIO24

Breaking

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

বুধবার, ২৬ আগস্ট, ২০১৫

কানাইঘাটে হাততালি দেয়াকে কেন্দ্র বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ছাত্র ও শিক্ষক সহ আহত ২৫

হেলাল আহমদঃ সিলেটের কানাইঘাট উপজেলায় শিক্ষক সমিতির আয়োজনে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার প্রথম দিনে হ্যান্ডবল খেলায় হাততালি দেয়াকে কেন্দ্র করে কানাইঘাট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় ও এলাকার বখাটেদের হামলায় বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক- ছাত্র সহ আহত কমপক্ষে ২৫ জন। এদের মধ্যে গুরুতর আহত ১৫ জন হয়েছেন। আহতদের কে কানাইঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি করা হয়েছে। জানা যায়, কানাইঘাট উপজেলায় শিক্ষক সমিতির আয়োজনে প্রতি বছর কানাইঘাট উপজেলার সব ক'টি হাই স্কুল নিয়ে আয়োজিত হয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা । এর-ই ধারাবাহিকতায় এ বছর ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা আয়োজন করে কানাইঘাট শিক্ষক সমিতি। আজ প্রতিযোগিতার প্রথম দিন, যথারীতি কানাইঘাট নির্বাহী কর্মকর্তার সভাপতিত্তে শুরু হয় । কানাইঘাট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে হ্যান্ডবল খেলা দিয়ে শুরু হয় বাছাই পর্ব । কানাইঘাট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় বনাম বড়দেশ উচ্চ বিদ্যালয় । খেলার প্রথম থেকে বড়দেশ উচ্চ বিদ্যালয় প্রচণ্ড চাপ সৃষ্টি করে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। সে সময় কানাইঘাট সরকারী উচ্চ বিদালয়ের ছাত্র ও এলাকাবাসী কানাইঘাট উচ্চ বিদ্যালয়ের সমর্থনে হাততালি দেয় এবং প্রতিপক্ষকে দুর্বল করতে বিভিন্ন আপত্তিকর ও আক্রমণাত্মক শ্লোগান দেয়। তার কিছুক্ষণ পর ভালো খেলার ফলাফল হিসেবে কানাইঘাট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় দলের জালে বল পাঠিয়ে দেয় বড়দেশ উচ্চ বিদ্যালয়ের খেলোয়াড়রা। তখন গাছবাড়ী মডার্ন একাডেমী, মানিক গঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়, আলহাজ্ব বশির আহমদ উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্ররা বড়দেশ উচ্চ বিদ্যালয়ের খেলোয়াড়দের কে সমর্থন করে , তাদের কে উৎসাহিত করতে হাততালি দেয় আর সেখানেই বেঁধে যায় বিপত্তি । কানাইঘাট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের কিছু ছাত্র ও এলাকার কিছু বখাটে গোল হজম ও প্রতিপক্ষ কে অন্যান্যদের সমর্থন মেনে নিতে না পেরে হামলা চালায় খেলোয়াড়, সাধারণ ছাত্র- শিক্ষকদের উপর। সে সময় তারা গাছবাড়ী মডার্ন একাডেমী, মানিক গঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়, আলহাজ্ব বশির আহমদ উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রদের কে বেধড়ক মারধোর করতে থাকে। তাদের কে শান্ত করতে গাছবাড়ী মডার্ন একাডেমীর শিক্ষক আসাদুজ্জামান আসাদ ও সিনিয়র শিক্ষক আলম সহ বেশ কয়েকজন শিক্ষক এগিয়ে এলে তাদেরকেও কে লাঞ্ছিত করে তারা। শুধু তাই নয় , উল্লেখিত তিন প্রতিষ্ঠানের প্রাণের ভয়ে বিভিন্ন বাসা-বাড়িতে আশ্রয় নেয়া ছাত্রদের কে তারা খুঁজে বের করে পিঠিয়ে বেশ কয়েক জনের মাথা ফাটিয়ে দেয় এবং হাত ও পা ভেঙে দেয়। এরপর তারা পার্শ্ববর্তী কানাইঘাট বাজারে গিয়ে বিভিন্ন দোকান, হোটেল ও রেস্টুরেন্টে খুঁজে খুঁজে হামলা চালাতে থাকে সাধারণ ছাত্রদের উপর। সেই সাথে তারা কানাইঘাট থেকে গাছবাড়ী গামী প্রত্যেকটি গাড়ীতে ছাত্রদের খুঁজতে থাকে । সে সময় ছাত্র সন্দেহে বেশ কয়েকজন সাধারণ যুবক কে ও লাঞ্চিত করা হয়। পরে এলাকাবাসী ও পুলিশের সহযোগিতায় সেখান থেকে ফিরে আসতে সক্ষম হয় উক্ত তিন প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-শিক্ষকরা । কানাইঘাট শিক্ষক সমিতি কানাইঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে এর সুষ্ট বিচার দাবী করেছেন । অন্যথায় কানাইঘাট উপজেলা শিক্ষক সমিতির তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত অনুযায়ী,কানাইঘাট উপজেলার কোন বে-সরকারী স্কুল, কানাইঘাট সরকারী স্কুলের অধীনে কোন খেলায় অংশ গ্রহন করবে না বলে জানিয়েছেন।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Top Ad

Responsive Ads Here