জাতীয় শোকের মাসে কাতারের বিতর্কিত রাষ্ট্রদূতের সংবর্ধনা - JONOPRIO24

Breaking

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

মঙ্গলবার, ২৫ আগস্ট, ২০১৫

জাতীয় শোকের মাসে কাতারের বিতর্কিত রাষ্ট্রদূতের সংবর্ধনা

বিশেষ প্রতিনিধি : সোমবার ২৪ আগষ্ট রাতে পাচঁ তারকা হোটেল অরেক্স রটনায়, নানা অনিয়ম ক্যালেঙ্কারির বিতর্কিত কর্মকান্ডে জড়িত মেয়াদ শেষ হয়ার দশ মাস আগে প্রত্যাহিরত কাতারের বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সৈয়দ মাসুদ মাহমুদ খন্দকার কে জাতীয় শোকের মাসে বিদায় সংবর্ধনা দিয়েছেন তার অনিয়ম দুর্নীতির সাথে জরিত অনুসারীরা । এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠান বর্জন করেছেন কাতারের বাংলাদেশ কমিউনিটি, আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ, বিএনপি, জামাত, জাতীয় পার্ঠি সহ অনেক রাজনৈতিক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন । আওয়ামীলীগ কাতার শাখার সভাপতি সফিকুল ইসলাম প্রধান এর কাছ থেকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের বিষয় জানতে চাইলে তিনি জানান, জাতীয় শোকের মাসে ৪০ দিন দেশে কিং বা বিদেশে কোন সংবর্ধনা অনুষ্ঠান হয় না, যেখানে রাষ্ট্রয় তাকে প্রত্যাহার করে নিয়েছে, সেইখানে সেই ব্যক্তি কে সংবর্ধনা দিলে রাষ্ট্রের বিরুদ্ধিতা করার সমান হয়, এই রাষ্ট্রদূত সৈয়দ মাসুদ মাহমুদ খন্দকারের অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রত্যাহারের দাবিতে গত ২৫ এপ্রিল জাতীয় প্রেসক্লাবে আমরা সংবাদ সম্মেলন করেছিলাম । যুবলীগ কাতার শাখার সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ আহমেদ এর কাছ থেকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের বিষয় জানতে চাইলে তিনি জানান, রাষ্ট্রদূত কে আসবে কে যাবে সেটা আমাদের জানার বিষয় না, যেহেতু জাতীয় শোকের মাস,শোকের মাসে আমরা কোন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যাব না । স্বেচ্ছাসেবক লীগ কাতার শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু ইউসুফ বাবুলের কাছ থেকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের বিষয় জানতে চাইলে তিনি জানান, জাতীয় শোকের মাসে কোন সংবর্ধনা কাউকে দেওয়া উচিত না, যারা এই সংবর্ধনা দিয়েছেন ঠিক করেন নাই, আমি এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের প্রতিবাদ জানাই । বঙ্গবন্ধু পরিষদ কাতার শাখার সভাপতি বীর মুক্তিযুদ্ধা মোঃ মুসার কাছ থেকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের বিষয় জানতে চাইলে তিনি জানান, আমি এক জন মুক্তিযুদ্ধা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশ সে দিন আমি যুদ্ধে গেয়েছিলাম, জাতীয় শোকের মাসে আমি কাউকে সংবর্ধনা দিতে যেতে পারিনা । বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ কাতার শাখার সভাপতি বাবু মনরঞ্জন শাহার কাছ থেকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের বিষয় জানতে চাইলে তিনি জানান, আমি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে দাওয়াত পেয়েছি, আমি তাদের কে বলেছি আমি বঙ্গবন্ধু আর্দশের সৈনিক কোন বঙ্গবন্ধু আর্দশের সৈনিক জাতীয় শোকের মাসে কোন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যেতে পারেনা । উল্লেখ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে গত ১ এপ্রিল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো চিঠিতে মাসুদ মাহমুদ খন্দকারকে ফিরিয়ে আনার নির্দেশ দেওয়া হয় । গত ১ এপ্রিল প্রত্যাহারের নির্দেশ দিলেও, পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় প্রায় চার মাস পড়ে তাকে প্রত্যাহার করে নিল । আগামী কাল ২৬ আগষ্ট তাকে ঢাকায় ফিরিয়ে নেওয়া হচ্ছে । গত ৩০ মার্চ কাতারের রাস্ট্রদুত সৈয়দ মাসুদ মাহমুদ খন্দকারের বিরুদ্ধে দুর্নীতি অনিয়মের ক্ষমতার অপব্যবহারসহ সরকারি অর্থ আত্মসাৎ,পদে পদে অনিয়ম ও প্রবাসী শ্রমিকদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। গত ১২ থেকে ১৫ এপ্রিল তারা কাতার ভ্রুমণ করেন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক-২ বেগম নিলুফার আহমেদ অপর দুই সদস্য হলেন-পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক এবং জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব । তদন্ত কমিটিকে এক মাসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হলে ও তারা প্রায় তিন মাস পড় প্রতিবেদন জমা দেন । তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, কাতার প্রবাসী সাংবাদিক বাংলা ভিশন কাতার প্রতিনিধি শরিফ উদ্দিন সন্দ্বীপি কে রাস্ট্রদুত সৈয়দ মাসুদ মাহমুদ খন্দকারের বলির পাঁঠার সিকার হয়ে বাংলাদেশে ফিরত যেতে হয় । গত বছরের ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে রাষ্ট্রদূতের পৃষ্ঠপোষকতায় কাতারে নাচ গানের আয়োজন হলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের হস্তক্ষেপ ও স্থানীয় আওয়ামীলীগ, সৈনিক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও যুবলীগের বাধায় পণ্ড হয়ে যায় নাচ গানের অনুষ্ঠান। গত বছরের ২১শে অক্টোবর দূতাবাসে একটি অনুষ্ঠান আয়োজনের কারণে দূতাবাসের কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়। সকাল ৯টা থেকে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত, দূর-দূরান্ত থেকে আসা কর্মীরা বাইরে দাঁড়িয়ে থাকেন। সরকারের অনুমতি না নিয়েই রাষ্ট্রদূত সড়কপথে সৌদি আরব যান এবং ফেরার পথে গত বছরের ৭ জুলাই দুর্ঘটনায় পতিত হন। কাতারে বাংলাদেশ স্কুলের মাঠে লাখো কণ্ঠে জাতীয় সঙ্গীত অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর ছবি ছিল না । রাষ্ট্রদূত সৈয়দ মাসুদ মাহমুদ খন্দকারকে ২০১৩ সালের ১১ মে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে কাতারে নিযুক্ত করা হয়। কাতারের রাষ্ট্রদূত হিসাবে নিয়োগ পাওয়ার আগে তিনি কলকাতা, ম্যানিলা, লন্ডন এবং অটোয়ায়

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Top Ad

Responsive Ads Here