দলের জন্য নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে দৃষ্টান্তস্থাপন করেছিলেন “এম এ আজিজ” - JONOPRIO24

Breaking

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

বুধবার, ২৬ আগস্ট, ২০১৫

দলের জন্য নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে দৃষ্টান্তস্থাপন করেছিলেন “এম এ আজিজ”

সুফিয়ান আহমদ,বিয়ানীবাজার প্রতিনিধিঃ শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, সদ্য প্রয়াত এম এ আজিজ ছিলেন আওয়ামীলীগের জন্য একজন নিবেদিত ও ত্যাগী নেতা। বিয়ানীবাজারে আওয়ামীলীগকে প্রতিষ্টা করার জন্য তিনি যে ত্যাগ স্বীকার করেছিলেন এবং দলের জন্য নিঃস্বার্থভাবে  কাজ করে যে দৃষ্টান্তস্থাপন করেছিলেন তা সত্যিই অনুকরণীয়। শিক্ষামন্ত্রী বলেন,মুক্তিযোদ্ধের অন্যতম সংগঠক এম এ আজিজ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অত্যন্ত আস্থাভাজন এবং ঘনিষ্ট সহচর ছিলেন। বঙ্গবন্ধু তাকে বিয়ানীবাজারী আজিজ হিসেবে ডাকতেন।  তিনি সবসময় দেশ ও দেশের মানুষের কথা চিন্তা করতেন। স্বাধীনতার পূর্বে ও পরে তিনি আওয়ামীলীগের প্রতিষ্টাতা সভাপতি হিসেবে বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা পেলেও তা কখনো ভোগ করেন নি। দেশ ও দশের মঙ্গলের জন্য তিনি নিজের ভোগ বিলাসকে ত্যাগ করে নিঃস্বার্থভাবে কাজ করেছেন। কখনো কোন লোভ লালসা তাকে স্পর্শ করেনি। যার অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামীলীগের আজকের এই শক্তিশালী অবস্থান। তাই আমাদের সবাইকে এম এ আজিজ সাহেবের জীবন থেকে শিক্ষা নিয়ে দলের জন্য কাজ করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে বাস্তবায়ন করতে হবে। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিয়ানীবাজার উপজেলা মিলনায়তনে উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্টাতা সভাপতি,মুক্তিযোদ্ধের অন্যতম সংগঠক,বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানে ঘনিষ্ট সহচর সদ্য প্রয়াত এম এ আজিজ স্মরণে শোকসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী এসব কথা বলেন। বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি হাজী আবদুল হাছিব মনিয়ার সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আহমদের পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আবদুল আহাদ কলা মিয়া,হেলাল হারুন চৌধুরী ও ময়নুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক শামছুদ্দিন মাখন, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন বাবুল, জাকির হোসেন। উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এশোকসভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন,উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা ও মুড়িয়া ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম,উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হারুনুর রশিদ দিপু, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক সালেহ আহমদ বাবুল, আইন বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল বাছিত আতা মিয়া,ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম, বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক আবদুল জলিল চৌধুরী বাবর, শিক্ষামন্ত্রীর এপিএস দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি সামছুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক এবাদ আহমদ, উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক আব্দুল কুদ্দুস টিটু,যুগ্ম আহবায়ক ছফর উদ্দিন লোদী, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা কামাল হোসেন,পাবেল মাহমুদ,আমান উদ্দিন,জুনেদ আহমদ প্রমুখ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Top Ad

Responsive Ads Here