দূতাবাস ও সংস্থায় ‘খুন-গুমের তালিকা’ দিলো বিএনপি - JONOPRIO24

Breaking

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

সোমবার, ৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১৫

দূতাবাস ও সংস্থায় ‘খুন-গুমের তালিকা’ দিলো বিএনপি

জনপ্রিয় ডেস্ক: গত এক মাসে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের অনেক নেতাকর্মী গুম-খুনেরশিকার হয়েছেন এর একটি তালিকা বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা ও বিদেশি দূতাবাসে পাঠিয়েছে বিএনপি। এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করে সরজমিনে তদন্ত করার জন্যও মানবাধিকার সংস্থাগুলোর কাছে অনুরোধও জানিয়েছে তারা।  আগামী সপ্তাহে বাংলাদেশের সাম্প্রতিক মানবাধিকার পরিস্থিতি দেখতে ঢাকায় আসছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) একটি উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদল। এ প্রেক্ষাপটেই বিএনপির পক্ষ থেকে তালিকাটি দেওয়া হলো বলে জানিয়েছে দলীয় সূত্র। তালিকা দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বিএনপি চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী অ্যাডভোকেট শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস বাংলানিউজকে বলেন, গত ৫ জানুয়ারি থেকে বিএনপিসহ ২০ দলীয় জোটের ৭৮ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এসব হত্যাকাণ্ডের মধ্যে রংপুর, কুড়িগ্রাম, রাজধানী ঢাকার যাত্রাবাড়ী, বরিশালে উজিরপুর, কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন জেলার নেতাকর্মী ও সাধারণ জনগণ রয়েছে। শিমুল বিশ্বাস বলেন, গত এক মাসে ১৮ হাজার নেতাকর্মী, সাধারণ মানুষ গ্রেফতার হয়েছে। মামলায় ৭ লাখের অধিক নেতাকর্মীকে ‍আসামি করা হয়েছে। 
বিএনপির পক্ষ থেকে যাদের বিচার বহির্ভূতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে তাদের মধ্যে রয়েছে- তেবাড়িয়ার রাকিব মুন্সি (বিবিএ শিক্ষার্থী), রায়হান আলী (ছাত্রদল), রাজশাহীর মহানগরের আইনুর রহমান মুক্ত (বিএনপি), রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহাবুদ্দিন (ছাত্রশিবির), বানেশ্বরের মজিরউদ্দীন (বিএনপি), গোদাগাড়ীর মো. এসলাম (যুবদল), বিনোদপুরের নুরুল ইসলাম শাহিন (কলেজ শিক্ষক), চাঁপাইনবাবগঞ্জের কানসাটের জমসেদ আলী (বিএনপি), বাবগঞ্জের আসাদুল্লাহ তুহিন (ছাত্রশিবির), শিবগঞ্জের মতিউর রহমান (ছাত্রদল), নোয়াখালীর চৌমুহনীর মিজানুর রহমান (যুবদল), মহসিন উদ্দিন (ছাত্রদল), বেগমগঞ্জের মো. সোহেল (যুবদল), সোনাইমুড়ির মোরশেদ আলম পারভেজ (ছাত্রদল), চুয়াডাঙ্গার শংকর চন্দ্রপুরের সিরাজুল ইসলাম (বিএনপি), নড়াইলের স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর ইমরুল কায়েস (জামায়াত), ঢাকার খিলগাওয়ের নুরুজ্জামান জনি (ছাত্রদল), ঢাকা কলেজের এমদাদ উল্লাহ (ছাত্রশিবির), আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ঢাকা ক্যাম্পাসের ছাত্র আরিফুল ইসলাম মুকুল (ছাত্রদল), মাতুয়াইলের সাখাওয়াত হোসেন রাহাত (ছাত্রদল), মুজাহিদুল ইসলাম জাহিদ, ভাসানটেকের আল আমীন, আগারগাঁওয়ের জসিমউদ্দিন (ছাত্রশিবির), সোলাইমান উদ্দিন (ছাত্রদল), চট্টগ্রামের লোহাগড়ার সাকিবুল ইসলাম (ছাত্রশিবির), রাঙ্গুনিয়ার জিল্লুর রহমান ভান্ডারী (যুবদল), ভোলা সদরের আবুল কালাম (শ্রমিক), ঝিনাইদহের শৈলকুপার সুলতান আলী বিশ্বাস (শ্রমিক), চরফ্যাশনের হারুন অর রশীদ (ছাত্রদল), সাতক্ষীরার তালার রফিকুল ইসলাম (সাধারণ জনতা), রামনগরের শহীদুল ইসলাম (জামায়াত), ময়মনসিংহের নান্দাইলের আসিফ পারভেজ টুকুন (ছাত্রদল), যশোরের চৌগাছার আবদুস সামাদ মোল্লা (বিএনপি), মনিরামপুরের মো. ইউসুফ (যুবদল), দুর্গাপুরের মো. লিটন (যুবদল), সদরের রাজু ( বিএনপি) সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার সাইদুল ইসলাম (জামায়াত), কুমিল্লা সদর দক্ষিণের কালা স্বপন (বিএনপি),
  চৌদ্দগ্রামের সাহাবুদ্দিন পাটোয়ারী (ছাত্রশিবির), পিরোজপুরের বাচ্চু মিয়া (জামায়াত) প্রমুখের নাম ও ঠিকানা। এছাড়া দলের সাংগঠনিক সম্পাদক এম ইলিয়াস আলী ও ঢাকা সিটি করপোরেশন কাউন্সিলর চৌধুরী আলমসহ ২০১২ সালে গুম-খুনের বিষয়গুলোও তালিকায় উল্লেখ করা হয়েছে বলে জানান শিমুল বিশ্বাস।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Top Ad

Responsive Ads Here