সৌদি রাজা আব্দুল্লাহর মৃত্যু: কী প্রভাব পড়বে বিশ্বে? - JONOPRIO24

Breaking

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

শুক্রবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০১৫

সৌদি রাজা আব্দুল্লাহর মৃত্যু: কী প্রভাব পড়বে বিশ্বে?

জনপ্রিয় ডেস্ক : সৌদি আরবের রাজা আবদুল্লাহ বিন আব্দুল আজিজের মৃত্যুর পর দেশটির নয়া অধিপতি হয়েছেন তার সৎভাই সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ। নয়া রাজা সালমানের বয়স ৭৯ বছর। তিনি ২০১২ সাল থেকে দেশটির যুবরাজ ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। পরলোকগত আব্দুল্লাহর এক দশকের শাসনকাল নানা কারণে আলোচিত। আরব বিশ্বে আমেরিকার সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ মিত্র হিসেবে সব সময় মার্কিন স্বার্থ রক্ষা চলেছেন তিনি। এর পাশাপাশি দেশের অভ্যন্তরে কিছু সংস্কার এনেছেন রাজা আব্দুল্লাহ। এ অবস্থায় মার্কিন মিত্র আব্দুল্লাহর মৃত্যুতে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে কী প্রভাব পড়বে, তা নিয়ে অনেকের মনেই কৌতূহল সৃষ্টি হয়েছে। রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা বলছেন, রাজা আব্দুল্লাহর মৃত্যুর প্রভাব পড়বে নানা ক্ষেত্রে। তবে সবচেয়ে বেশি লক্ষণীয় প্রভাব পড়তে পারে জ্বালানি তেলের বাজারে। মার্কিন ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নের লক্ষ্যে গত কয়েক মাস ধরে আন্তর্জাতিক বাজারে অতিরিক্ত জ্বালানি তেল সরবরাহ করছে সৌদি আরব। এতে তেলের দাম প্রায় ৬০ শতাংশ কমে গেছে। জ্বালানি তেলের দাম কমে যাওয়ায় তেল রপ্তানিকারক অন্য দেশগুলোর মতো সৌদি আরবেরও কোনো কোনো মহল মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়েছে। নতুন রাজা সালমান এসব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে অতিরিক্ত তেল সরবরাহের নীতিতে পরিবর্তন আনতে পারেন বলে ধারণা করছেন অনেক বিশ্লেষক। এরইমধ্যে আব্দুল্লাহর মৃত্যুর খবরে বিশ্ব বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কিছুটা বেড়েছে। আব্দুল্লাহ গত প্রায় চার বছর ধরে ধ্বংসাত্মক পররাষ্ট্র নীতি অনুসরণ করেছেন। তিনি মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশের স্বৈরাচারী শাসক এবং তাকফিরি জঙ্গি গোষ্ঠীর প্রতি পূর্ণ সমর্থন দিয়েছেন। বিশেষকরে ২০১১ সালে বাহরাইনের জনগণ রাজতান্ত্রিক স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করলে সৌদি রাজা তা দমনের জন্য সেখানে নিজ দেশের সেনা পাঠান। এছাড়া তাকফিরি জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসআইএলের প্রতি সব ধরনের সমর্থন ও সহযোগিতা দিয়ে গেছেন রাজা আব্দুল্লাহ। সিরিয়ার বৈধ সরকারকে উৎখাত এবং ইরাকের সরকার ব্যবস্থাকে দুর্বল করার জন্য ওই জঙ্গিদের লেলিয়ে দেন তিনি। আব্দুল্লাহর ভুল পররাষ্ট্রনীতির কারণে প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সৌদি আরবের সম্পর্কে টানাপড়েন বেড়েছে।

 রাজা আব্দুল্লাহর মৃত্যুত সৌদি প্রিন্সদের মধ্যে ক্ষমতার লড়াই তীব্রতর হবে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে। নয়া রাজা সালমানসহ আব্দুল্লাহর সব ভাই এখন বৃদ্ধ। আব্দুল্লাহর শাসনামলে তার দুই ভাই ও একজন যুবরাজ মারা গেছেন। জীবিতদের অনেকেই জটিল রোগে ভূগছেন। এ কারণে ভবিষ্যতেও দেশটির শাসন কাঠামোর শীর্ষ পর্যায়ে ঘন ঘন পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাবে। এ অবস্থায় রাজপরিবারের সদস্যদের মধ্যে চলমান ক্ষমতার লড়াই তীব্রতর হবে যা দেশটির স্থিতিশীলতার জন্য ক্ষতি বয়ে আনবে। স্বয়ং রাজা আব্দুল্লাহও এ বিষয়ে আভাস পেয়েছিলেন। এ কারণে তিনি রাজপরিবারে ক্ষমতার হাতবদলের প্রক্রিয়ায় সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছিলেন। এ সংক্রান্ত সংস্কার শেষ না হতেই তিনি মৃত্যুবরণ করলেন। ধারণা করা হচ্ছে, তার অনুপস্থিতিতে সংস্কার প্রক্রিয়া আর বেশি দূর এগোবে না।   যাইহোক নতুন রাজা সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ বাস্তবতার আলোকে ভারসাম্যপূর্ণ নীতি গ্রহণ করবেন এবং প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক উন্নত করার পদক্ষেপ নেবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Top Ad

Responsive Ads Here